আজকের দিনে

আজকের দিনে || ১৭ জুলাই

কালের চাকা ঘূর্ণায়মান। ইতিহাসের পাতা ওল্টালেই চোখে পড়ে ঘটনার ঘনঘটা। দৈনন্দিন সেই হিসেব আমরা ইন্টারনেটের দুনিয়ায় চোখ রাখলে কিছুটা হয়ত পেয়েও যাবো – কিন্তু সববাংলায় এর পাতায় সেটা পাবো একটু অন্যভাবে – ভারত, বাংলাদেশ এবং বাকি বিশ্বের মনে রাখার মত ঘটনাগুলি পড়ে নেব নিজের মাতৃভাষায়। চলুন দেখে নিই আজকের কিছু  গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা –  ইতিহাসে ১৭ জুলাই।

বিশেষ দিবসঃ

বিশ্ব ন্যায়বিচার দিবস।

বিশ্ব ইমোজি দিবস।

আজকের দিনে ভারতঃ

১৮২৩ সালের আজকের দিনে গভর্নর জেনারেল জন এ্যাডামের প্রস্তাব অনুসারে কলকাতায় সাধারণ শিক্ষা সমিতি গঠিত হয়।

১৮৫৫ সালের আজকের দিনে পাঠশালার শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের লক্ষ্যে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের তত্ত্বাবধানে নর্মাল স্কুল স্থাপিত হয়।

১৮৬১ সালের আজকের দিনে কংগ্রেস কাগজের নোট অনুমোদন করে।

১৯১৫ সালের আজকের দিনে বাঙালি নাট্যমঞ্চের খ্যাতনামা অভিনেতা বিজন ভট্টাচার্য জন্মগ্রহণ করেন।

১৯৯২ সালের আজকের দিনে ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্রাভিনেত্রী ও গায়িকা কানন বালা দেবী পরলোক গমন করেন।

আজকের দিনে বাংলাদেশ

১৯৬৩ সালের আজকের দিনে স্পেনে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়।

১৯৭৭ সালের আজকের দিনে বাংলাদেশের কর্ণফুলীর মোহনায় জেটি চালু হয়।

১৯৫৯ সালের আজকের দিনে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ইংরেজ রাজনীতিবিদ মানযিলা পলা উদ্দিন জন্মগ্রহণ করেন।

১৯৩১ সালের আজকের দিনে আধুনিক বাংলা গদ্য সাহিত্যের প্রথম দিকের অন্যতম মুসলমান সাহিত্যিকদের মধ্যে সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী পরলোক গমন করেন।

আজকের দিনে বিশ্ব

১০৫৪ সালের আজকের দিনে সম্রাট তৃতীয় হেনরির পুত্র চতুর্থ হেনরির অভিষেক হয়।

১৬৯৮ সালের আজকের দিনে ফরাসি গণিতবিদ ও দার্শনিক পিয়ের লুইস মাউপেরটুইস জন্মগ্রহণ করেন।

১৭১২ সালের আজকের দিনে ইংল্যান্ড, পর্তুগাল ও ফ্রান্স যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে।

১৭৯০ সালের আজকের দিনে টমাস সেইন্ট প্রথম সেলাই কলের পেটেন্ট করেন।

১৭৯৭ সালের আজকের দিনে ফরাসি চিত্রশিল্পী হিপোলয়টে ডেলারচেভ জন্মগ্রহণ করেন।

১৯০০ সালের আজকের দিনে ব্রিটিশ ম্যাগাজিন পাঞ্চ প্রকাশিত হয়।

১৯১৩ সালের আজকের দিনে বিখ্যাত ফরাসী দার্শনিক রুজে গারুদী জন্মগ্রহণ করেন।

১৯৫৫ সালের আজকের দিনে ক্যালফোর্নিয়ায় ডিজনিল্যান্ড উদ্বোধন হয়।

১৯৭৩ সালের আজকের দিনে আফগানিস্তানের শেষ বাদশাহ জহির শাহের পতনের মধ্য দিয়ে দেশটিতে রাজতন্ত্রের অবসান ঘটে।

১৯৭৬ সালের আজকের দিনে পূর্ব তিমুর ইন্দোনেশিয়ার ২৭তম প্রদেশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top

বাংলা ভাষায় তথ্যের চর্চাকে ছড়িয়ে দিতে পোস্টটি লাইক ও শেয়ার করুন। 

  

error: Content is protected !!