যত দোষ নন্দ ঘোষ

যত দোষ নন্দ ঘোষ

বাংলায় প্রচলিত অন্যতম প্রবাদ হল যত দোষ নন্দ ঘোষ, আমরা প্রায়ই কথায় কথায় এই বাক্যের ব্যবহার করে থাকি৷ প্রবাদটির অর্থ, যে যেখানে যাই দোষ করুক না কেন একজনের উপরই দোষ দেওয়া হয়, বা দূর্বলের প্রতি সর্বদা দোষারোপ। এবার জেনে নেওয়া যাক প্রবাদটির পিছনে থাকা গল্পটি৷

এই প্রবাদের উৎপত্তি কৃষ্ণের বাল্যলীলার কাহিনী থেকে। শ্রীকৃষ্ণের পিতা বাসুদেব কংসের হাত থেকে তাদের অষ্টম পুত্র কৃষ্ণকে রক্ষা করার জন্য অদূরে ঘোষপল্লীতে আত্মীয় নন্দঘোষের বাড়িতে শ্রীকৃষ্ণকে রেখে এসেছিলেন৷ নন্দ ঘোষ বলরাম ও কৃষ্ণকে পুত্রস্নেহে পালন করেন৷ নন্দ পত্নী যশোদাও খুব স্নেহ করতেন দুই পালিত পুত্রকে। বিষ্ণুপুরাণ বা মহাভারতে শ্রীকৃষ্ণের বাল্যলীলার কাহিনী তেমন ভাবে না থাকলেও, ভক্তদের লেখা ভাগবতে শ্রীকৃষ্ণের ননী চুরি, মাখন চুরি, দুষ্টুমির কথা লেখা আছে৷

কথিত আছে শ্রীকৃষ্ণ বাল্যকালে বড়ই চঞ্চল ছিলেন তিনি মাঠঘাট বনবাদাড় চষে বেড়াতেন। ননী চুরি করতেন, গোপনারীদের কলসী ফুটো করে দিতেন, আয়ান ঘোষের স্ত্রী রাধিকার সঙ্গে প্রণয় লীলা এবং স্নানরত রমনীদের উত্যক্ত করতেন৷ গ্রামের সকলে এসে নন্দ ঘোষের কাছে নালিশ জানাত কিন্তু স্নেহের বশবর্তী হয়ে তিনি কৃষ্ণকে কিছুই বলতেন না৷ তখন সব ক্ষোভ গিয়ে পড়ত নন্দঘোষের উপর।
গল্পের গোপালের চিত্র সম্পূর্ণ বাস্তব না হলেও প্রচলিত লোককথা থেকেই প্রবাদটির উৎপত্তি ঘটেছে৷

একটা উদাহরণ দেওয়া যাক, দপ্তরের একনিষ্ঠ কর্মী হওয়া সত্ত্বেও কাজে এদিক ওদিক হলেই বড়বাবুরা সব দায় মহিমের ঘাড়ে এসে ফেলেন ; এ যেন যত দোষ নন্দ ঘোষ৷

তথ্যসূত্র


  1.  প্রবাদের উৎস সন্ধান - সমর পাল,  শোভা প্রকাশ, ঢাকা, পৃষ্ঠা ১৩২

আপনার মতামত জানান