সাম্প্রতিক পোস্ট

  • সতীপীঠ  ফুল্লরা ।। সতীপীঠ অট্টহাস

    সতীপীঠ ফুল্লরা ।। সতীপীঠ অট্টহাস

    সতীপীঠ অট্টহাস বা ফুল্লরা মন্দিরটি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার লাভপুরের কাছে অবস্থিত। এটি একান্ন সতীপীঠের একটি পীঠ।  মতান্তরে এই পীঠকে উপপীঠ বলেও উল্লেখ করা হয়। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে এখানে সতীর ওষ্ঠ পড়েছিল। এখানে অধিষ্ঠিত দেবী ফুল্লরা এবং ভৈরব হলেন বিশ্বেশ। প্রতি বছর মাঘী পূর্ণিমায় ফুল্লরা মেলাতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য ভক্ত মায়ের দর্শন পেতে ছুটে […]আরও পড়ুন
  • দার্জিলিং ভ্রমণ

    দার্জিলিং ভ্রমণ

    সমুদ্র বলতে যেমন বাঙালি বোঝে দীঘা বা পুরী তেমনই হিল স্টেশন বা শৈলশহর বলতে দার্জিলিং। কথাতেই তো আছে দী-পু-দা অর্থাৎ দীঘা, পুরী আর দার্জিলিং হল বাঙালির প্রিয় ঘোরার জায়গা। দার্জিলিংকে বলা হয় পাহাড়ের রানী। পাহাড়ি এলাকার মনোরম পরিবেশ, চা, ট্রয় ট্রেন আর কাঞ্চনজঙ্ঘার ভিউ, এই নিয়েই দার্জিলিং। এখানের চায়ের স্বাদ তো পৃথিবীবিখ্যাত। ট্রয় ট্রেনও পৃথিবী […]আরও পড়ুন
  • জাকির হুসেন

    জাকির হুসেন

    ভারতের অন্যতম বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং তৃতীয় রাষ্ট্রপতি ছিলেন ডঃ জাকির হুসেন (Zakir Husain)। তিনি ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি যিনি রাষ্ট্রপতিত্বের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই কর্মস্থলে মারা যান৷  ১৮৯৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি উত্তরপ্রদেশের কাইমগঞ্জের ফারুকাবাদে জাকির হুসেনের জন্ম হয়৷ তাঁর বাবার নাম ফিদা হুসেন খান এবং মায়ের নাম নাজনিন বেগম৷ তাঁদের পরিবার ছিল পাঞ্জাবের পশতুন মুসলমান যাঁরা […]আরও পড়ুন
  • সরস্বতী পূজা

    সরস্বতী পূজা

    কথায় আছে বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। বাঙালিদের এইসমস্ত নানাবিধ পূজার মধ্যে একটি হল সরস্বতী পূজা। এই পূজা ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। মাঘ মাসের শুক্লা পঞ্চমী তিথিতে সরস্বতী পূজা পালিত হয়। এই তিথি শ্রীপঞ্চমী বা বসন্ত পঞ্চমী নামে পরিচিত। বিশ্বাস করা হয় এই দিন থেকেই শীতের অবসান এবং বসন্তের আগমন হয়। সরস্বতী পূজার পরের […]আরও পড়ুন
  • দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা

    দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • জগা খিচুড়ি

    জগা খিচুড়ি

    আমাদের প্রিয় বাংলা ভাষা একটি অন্যতম উৎকৃষ্ট ভাষা, এর শব্দ ও সাহিত্য ভান্ডার অপরিসীম। যেকোনো  উৎকৃষ্ট ভাষার একটি প্রধান সম্পদ হলো প্রবাদ, ইংরেজিতে যাকে বলে proverb। বাংলা ভাষায় প্রাচীনকাল থেকেই অনেক প্রবাদ লোকমুখে বা সাহিত্যে প্রচলিত আছে। এই রকমই একটি বহুল প্রচলিত প্রবাদ হল “জগা খিচুড়ি”। এই প্রবাদটির অর্থ নানা রকম জিনিস মিলিয়ে মিশিয়ে এক […]আরও পড়ুন
  • জলপাইগুড়ি জেলা

    জলপাইগুড়ি জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • সতীপীঠ উজানি ।। সতীপীঠ মঙ্গলচণ্ডী

    সতীপীঠ উজানি ।। সতীপীঠ মঙ্গলচণ্ডী

    সতীপীঠ উজানি পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার কোগ্রামে অবস্থিত। এখানে মঙ্গলচণ্ডীর মন্দির একান্ন সতীপীঠের একটি পীঠ।  পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে এখানে সতীর বাঁ হাতের কনুই পড়েছিল। এখানে অধিষ্ঠিত দেবী মঙ্গলচন্ডী এবং ভৈরব হলেন কপিলাম্বর বা কপিলেশ্বর। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে মাতা সতী নিজের বাপের বাড়িতে বাবার কাছে স্বামীর অপমান সহ্য করতে না পেরে সেখানেই দেহত্যাগ করেছিলেন। মাতা সতীর দেহত্যাগের খবর […]আরও পড়ুন
  • বুনো রামনাথ

    বুনো রামনাথ

    পন্ডিত রামনাথ তর্কসিদ্ধান্ত (Ramnath Tarkasiddhanta) অষ্টাদশ শতাব্দীর একজন প্রখ্যাত পন্ডিত ছিলেন। বনের মধ্যে তাঁর টোল ছিল বলে তাঁকে অনেকে ‘বুনো রামনাথ’ নামেও ডাকত। তাঁর কোন প্রামাণিক জীবনী নেই তাই বিভিন্ন লেখকের বিভিন্ন বই ও প্রচলিত কাহিনীর উপর তাঁর জীবনী লিখিত। রামনাথ তর্কসিদ্ধান্তের জন্ম হয় ১৭৭০ সালে। তাঁর জন্মস্থান নিয়ে অনেকের অনেক রকম মত আছে। অনেকে মনে […]আরও পড়ুন
  • কঙ্কালীতলা মন্দির ভ্রমণ

    কঙ্কালীতলা মন্দির ভ্রমণ

    বীরভূম জেলাতে অবস্থান করছে মায়ের পাঁচটি সতীপীঠ। বক্রেশ্বরে দেবী মহিষমর্দিনী মন্দির , লাভপুরে দেবী ফুল্লরা, নলহাটীতে নলাটেশ্বরী, সাঁইথিয়ায় দেবী নন্দিকেশ্বরী এবং বোলপুরের কাছে কঙ্কালীতলা মন্দির। তারাপীঠকেও সতীপীঠ ধরা হলে সংখ্যাটা ছয়। সাধারণ পর্যটকদের পাশাপাশি কঙ্কালীতলা মন্দির তন্ত্রসাধনার জন্যও বিখ্যাত। এই মন্দির নিয়ে বিভিন্ন কাহিনী প্রচলিত আছে। অনেকের মতে সুড়ঙ্গের মাধ্যমে কঙ্কালীতলার সাথে কাশীর মণিকর্ণিকা ঘাটের […]আরও পড়ুন
  • কোচবিহার জেলা

    কোচবিহার জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • চোরে চোরে মাসতুতো ভাই

    চোরে চোরে মাসতুতো ভাই

    আমাদের প্রিয় বাংলা ভাষা একটি অন্যতম উৎকৃষ্ট ভাষা, এর শব্দ ও সাহিত্য ভান্ডার অপরিসীম। যেকোনো উৎকৃষ্ট ভাষার একটি প্রধান সম্পদ হল প্রবাদ, ইংরেজিতে যাকে বলে proverb। বাংলা ভাষায় প্রাচীনকাল থেকেই অনেক প্রবাদ লোকমুখে বা সাহিত্যে প্রচলিত আছে। এই রকমই একটি বহুল প্রচলিত প্রবাদ হল “চোরে চোরে মাসতুতো ভাই”। এই প্রবাদটির অর্থ, একজনের অন্যায় কাজে অন্য […]আরও পড়ুন
  • সমুদ্রের ঢেউ উপকূলে তুলনামূলকভাবে বড় হয় কেন

    সমুদ্রের ঢেউ উপকূলে তুলনামূলকভাবে বড় হয় কেন

    দীঘা, পুরী কিংবা গোয়া – সমুদ্রের টানে বার বার ছুটে যায় সাত থেকে সত্তর সকলেই। গঙ্গাসাগরের পুণ্যস্নান বা সমুদ্রের তীরে জলকেলী – সব ক্ষেত্রেই ঢেউ না থাকলে আনন্দ পাওয়া যায় না। আবার লক্ষ্য করলে দেখা যাবে সমুদ্রের ঢেউ উপকূলে তুলনামূলকভাবে বড় হয় যেন হঠাৎই উচ্চতা বাড়িয়ে আছড়ে পড়ে। এখানে আমরা জেনে নেবো ঢেউ তৈরির কারণ […]আরও পড়ুন
  • দার্জিলিং জেলা

    দার্জিলিং জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • সতীপীঠ কিরীটেশ্বরী

    সতীপীঠ কিরীটেশ্বরী

    কিরীটেশ্বরী মন্দিরটি পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার কিরীটকণা গ্রামে অবস্থিত। অবস্থিত। এটি একান্ন সতীপীঠের একটি পীঠ।  পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে এখানে সতীর মাথার মুকুটের অংশ পড়েছিল। মতান্তরে বলা হয় এখানে সতীর করোটির অংশ পড়েছিল। এখানে অধিষ্ঠিত দেবী বিমলা এবং ভৈরব হলেন সংবর্ত। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে মাতা সতী নিজের বাপের বাড়িতে বাবার কাছে স্বামীর অপমান সহ্য করতে না পেরে […]আরও পড়ুন
  • গুরুদাস ব্যানার্জি

    গুরুদাস ব্যানার্জি

    স্যার গুরুদাস ব্যানার্জি (Gurudas Banerjee) একজন খ্যাতনামা ভারতীয় বাঙালি বিচারপতি ছিলেন যিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ভারতীয় উপাচার্যের পদটিও অলংকৃত করেছিলেন। ১৮৪৪ সালে ২৬ জানুয়ারি কলকাতার নারকেলডাঙ্গায় একটি দরিদ্র ব্রাহ্মণ পরিবারে গুরুদাস ব্যানার্জির জন্ম হয়। তাঁর বাবার নাম রামচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মায়ের নাম সোনামণি দেবী। গুরুদাস ব্যানার্জির বাবা প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর প্রতিষ্ঠিত ‘কার  ঠাকুর কোম্পানি’তে (Kar Thakur […]আরও পড়ুন
  • শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়

    শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়

    শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায় (Sailajananda Mukhopadhyay) কল্লোল যুগের একজন ভারতীয় বাঙালি সাহিত্যিক ও চলচ্চিত্র পরিচালক। রবীন্দ্রোত্তর বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শক্তিশালী লেখক ছিলেন তিনি। ১৯০১ সালের ২১ মার্চ পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার অন্ডাল গ্রামে মামাবাড়িতে জন্ম হয় শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়ের। তাঁর বাবার নাম ধরণীধর মুখোপাধ্যায় এবং মায়ের নাম হেমবরণীদেবী। তিন বছর বয়সেই তাঁর মায়ের মৃত্যু হলে তাঁর বাবা আবার বিয়ে […]আরও পড়ুন
  • আঁটপুর

    আঁটপুর

    পশ্চিমবঙ্গের অন্তর্গত হুগলী জেলার শ্রীরামপুর মহকুমার অন্তর্গত জাঙ্গিপাড়া ব্লকের একটি ইতিহাস বিজড়িত জনপদ আঁটপুর(Antpur)। কলকাতা থেকে মাত্র কয়েক ঘণ্টার দূরত্বে হাওড়া-তারকেশ্বর (মেইন) শাখার স্টেশন হরিপালে নেমে সড়কপথে বাসে প্রায় ১৩ কিমি দূরে অবস্থিত এই জনপদ। আঁটপুরের ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায় প্রাচীন রাঢ়বাংলার দক্ষিণভাগে আজকের হাওড়া জেলা ও হুগলী জেলার বেশ কিছু অংশ নিয়ে গড়ে একদা […]আরও পড়ুন
  • চেনা বামুনের পৈতা লাগে না

    চেনা বামুনের পৈতা লাগে না

    আমাদের প্রিয় বাংলা ভাষা একটি অন্যতম উৎকৃষ্ট ভাষা, এর শব্দ ও সাহিত্য ভান্ডার অপরিসীম। যেকোনো উৎকৃষ্ট ভাষার একটি প্রধান সম্পদ হল প্রবাদ, ইংরেজিতে যাকে বলে proverb। বাংলা ভাষায় প্রাচীনকাল থেকেই অনেক প্রবাদ লোকমুখে বা সাহিত্যে প্রচলিত আছে। এই রকমই একটি বহুল প্রচলিত প্রবাদ হল “চেনা বামুনের পৈতা লাগে না”। এর অর্থ হল স্বনামখ্যাত ব্যক্তির পরিচিতির […]আরও পড়ুন
  • পূর্ব বর্ধমান জেলা

    পূর্ব বর্ধমান জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • তিতুমীর

    তিতুমীর

    তিতুমীর একজন বাঙালি স্বাধীনতা সংগ্রামী যিনি ওয়াহাবী আন্দোলনের অন্যতম নেতা ছিলেন। তিনি ইতিহাসে বিখ্যাত হয়ে আছেন ভূ-স্বামী, জমিদার ও ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে তাঁর আমরণ লড়াই এবং তাঁর বিখ্যাত বাঁশের কেল্লার জন্য। ১৭৮২ সালের ২৭ জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের ২৪ পরগণা জেলার বারাসত মহকুমার চাঁদপুর গ্রামে মীর নিসার আলী অর্থাৎ তিতুমীরের জন্ম হয়। তিতুমীরের বাবার নাম সৈয়দ মীর হাসান আলী এবং মায়ের […]আরও পড়ুন
  • কালিম্পং জেলা

    কালিম্পং জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • সতীপীঠ নন্দিকেশ্বরী

    সতীপীঠ নন্দিকেশ্বরী

    নন্দিকেশ্বরী মন্দিরটি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার সাঁইথিয়া শহরে অবস্থিত। এটি একান্ন সতীপীঠের একটি পীঠ। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে এখানে সতীর গলার হাড় পড়েছিল। মতান্তরে এখানে সতীর কণ্ঠহার পড়েছিল। এখানে অধিষ্ঠিত দেবী নন্দিনী ও ভৈরব নন্দিকেশ্বর নামে পরিচিত। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে মাতা সতী নিজের বাপের বাড়িতে বাবার কাছে স্বামীর অপমান সহ্য করতে না পেরে সেখানেই দেহত্যাগ করেছিলেন।মাতা সতীর […]আরও পড়ুন
  • রাজেন্দ্রনাথ মুখার্জী

    রাজেন্দ্রনাথ মুখার্জী

    রাজেন্দ্রনাথ মুখার্জী (Rajendranath Mukherjee) একজন প্রখ্যাত বাঙালি শিল্পপতি তথা স্থপতি ছিলেন। মার্টিন অ্যান্ড কোং এর ডিরেক্টর হিসেবে রাজেন্দ্রনাথ ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, এসপ্ল্যানেড ম্যানসন, সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ, রামকৃষ্ণ মিশন, ত্রিপুরা প্যালেস, মাইসোর মেমোরিয়াল সহ আধুনিক হাওড়া ব্রিজের নক্সা তৈরি ও রূপায়ণের দায়িত্বে ছিলেন। শিল্প-বাণিজ্যের নানা কমিটিতে যুক্ত হওয়ার পাশাপাশি রাজেন্দ্রনাথ বেঙ্গল অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন, বেঙ্গল ফ্লাইং ক্লাব এবং […]আরও পড়ুন
  • আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম

    আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম

    স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধান বিচারপতি এবং ষষ্ঠ রাষ্ট্রপতি ছিলেন আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম (Abu Sadat Mohammad Sayem)। ১৯৭৫ সালের নভেম্বর মাসে বাংলাদেশের পাল্টা অভ্যুত্থানের পরে তিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ৬ নভেম্বর ১৯৭৫ থেকে ২১ এপ্রিল ১৯৭৭ পর্যন্ত পর্বকাল বাংলাদেশের ইতিহাসের এক অনিশ্চিত সময়। এই পর্বকালেই তিনি ছিলেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর […]আরও পড়ুন
  • তাওস হাম

    তাওস হাম

    “There are more things in heaven and Earth, Horatio, / Than are dreamt of in your philosophy “- হ্যামলেট নাটকে শেক্সপীয়ারের এই অমর উক্তি ‘তাওস হাম’- রহস্যের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এই পৃথিবীতে রোজ এমন কত ঘটনা ঘটে যার ব্যাখ্যা আমাদের জানা যুক্তি দিয়ে সর্বদা করা যায় না। যেখানে যুক্তি বিজ্ঞানের জারিজুরি খাটেনা। এরকমই একটি অমীমাংসিত […]আরও পড়ুন
  • চন্দ্র মাধব ঘোষ

    চন্দ্র মাধব ঘোষ

    চন্দ্র মাধব ঘোষ (Chandra Madhab Ghosh) কলকাতা হাইকোর্টের প্রথম ভারতীয় বাঙালি বিচারপতি ছিলেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর প্রথম প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্রদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন তিনি। ১৮৩৮ সালে ২৬ ফেব্রুয়ারি অধুনা বাংলাদেশের শ্রীনগর উপজেলার ষোলঘর গ্রামে চন্দ্র মাধব ঘোষের জন্ম হয়। তাঁর বাবার নাম দুর্গা প্রসাদ ঘোষ এবং মায়ের নাম চন্দ্রবালা ঘোষ। দুর্গা প্রসাদ ঢাকার ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন। পরবর্তীকালে ইংরেজ […]আরও পড়ুন
  • যাদবপুর

    যাদবপুর

    পশ্চিমবঙ্গের অন্তর্গত কলকাতা জেলার অন্তর্গত একটি প্রসিদ্ধ ইতিহাস বিজড়িত জনপদ হল যাদবপুর। কলকাতার উল্লেখযোগ্য শহরের মধ্যে অন্যতম হয়ে উঠেছে যাদবপুর (Jadavpur) ৷ সময়ের হাতে হাত রেখে, আকর্ষণ, জনপ্রিয়তা এবং জনঘনত্বের অনুভূতি বুকে নিয়ে পরিপূর্ণ হয়ে উঠছে এই জনপদ। এই জনপদ শুধু মাত্র বড় শহরই নয়, বাঙালি বুদ্ধিজীবি মহল, বাংলার রাজনৈতিক পালা বদল, বাংলার জনজীবনে – […]আরও পড়ুন
  • প্যারীচরণ সরকার

    প্যারীচরণ সরকার

    প্যারীচরণ সরকার (Peary Charan Sarkar) উনিশ শতকের একজন পাঠ্যপুস্তক রচয়িতা ছিলেন যাঁর রচিত পাঠ্যপুস্তক সারা বাংলা তথা ভারতে বিপুল জনপ্রিয়তা পায় এবং দেশের অধিকাংশ প্রধান ভাষাগুলিতে তা অনূদিত হয়। তিনি একাধারে নারী শিক্ষার অগ্রদূত, শিক্ষাবিদ, সমাজসংস্কারকও ছিলেন।    ১৮২৩ সালের ২৩ জানুয়ারি উত্তর কলকাতার চোরবাগানে প্যারীচরণ সরকারের জন্ম হয়৷ তাঁদের পরিবারের আদি নিবাস ছিল হুগলীর […]আরও পড়ুন
  • গদাই লশকরি চাল

    গদাই লশকরি চাল

    আমাদের প্রিয় বাংলা ভাষা একটি অন্যতম উৎকৃষ্ট ভাষা, এর শব্দ ও সাহিত্য ভান্ডার অপরিসীম। যেকোনো  উৎকৃষ্ট ভাষার একটি প্রধান সম্পদ হলো প্রবাদ, ইংরেজিতে যাকে বলে proverb। বাংলা ভাষায় প্রাচীনকাল থেকেই অনেক প্রবাদ লোকমুখে বা সাহিত্যে প্রচলিত আছে। এই রকমই একটি বহুল প্রচলিত প্রবাদ হল “গদাই লশকরি চাল”। কোনও মানুষের মধ্যে দীর্ঘসূত্রীতা অর্থাৎ ‘করছি করবো, যাচ্ছি যাবো, উঠছি […]আরও পড়ুন
  • চারু মজুমদার

    চারু মজুমদার

    চারু মজুমদার (Charu Majumdar) একজন বিখ্যাত ভারতীয় বাঙালি নকশালপন্থী ও বামপন্থী নেতা। ষাট দশকের শেষে এবং সত্তর দশকের প্রথমে বাংলার নকশাল আন্দোলনে তিনি অন্যতম মুখ ছিলেন। ১৯১৯ সালের ১৫ মে বাংলাদেশের রাজশাহী জেলায় হাগুরিয়া গ্রামে চারু মজুমদারের জন্ম হয়। তাঁর বাবা বীরেশ্বর মজুমদার কংগ্রেসের দার্জিলিং জেলা কমিটির সভাপতি ও একজন স্বাধীনতা সংগ্রামী ছিলেন। তাঁর মা […]আরও পড়ুন
  • আমরা খুব ছোটবেলার স্মৃতি মনে রাখতে পারি না কেন

    আমরা খুব ছোটবেলার স্মৃতি মনে রাখতে পারি না কেন

    অতীতের কোন বিষয়কে নতুন করে মনে করার নামই স্মৃতি। সেটি কোন ঘটনা হতে পারে, দৃশ্য হতে পারে, শব্দ, ঘ্রাণ, স্বাদ, স্পর্শ সবই হতে পারে। তবে খেয়াল করে দেখবেন আমরা খুব ছোটবেলার স্মৃতি মনে রাখতে পারি না । ব্যতিক্রমী ঘটনা ছাড়া আমরা আমাদের প্রথম স্মৃতি যা মনে রাখতে পারি তা সাড়ে তিন বা চার বছর বয়সের […]আরও পড়ুন
  • ধরমপাল গুলাতি

    ধরমপাল গুলাতি

    ধরমপাল গুলাতি (Dharampal Gulati) যিনি মহাশয় ধরমপাল গুলাতি নামেই বেশী পরিচিত, একজন ভারতীয় ব্যবসায়ী যিনি এম.ডি.এইচ (MDH) মশলার প্রতিষ্ঠাতা এবং সি ই ও (CEO) ছিলেন। চটজলদি মশলা নির্মানে অগ্রণী ভূমিকার জন্য তাঁকে ‘মশলার রাজা’ নামে অভিহিত করা হয়ে থাকে। ১৯২৩ সালের ২৭ মার্চ শিয়ালকোটে (অধুনা পাকিস্তানে) ধরমপাল গুলাতির জন্ম হয়।তাঁর বাবা চুনিলাল গুলাতির মহাসিয়ান ডি […]আরও পড়ুন
  • ঝাড়গ্রাম জেলা

    ঝাড়গ্রাম জেলা

    আমাদের পশ্চিমবঙ্গ মূলত ২৩টি জেলাতে বিভক্ত। বেশীরভাগ জেলাই স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল, কিছু জেলা স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠিত, আবার কিছু জেলা একটি মূল জেলাকে দুভাগে ভাগ করে তৈরি হয়েছে মূলত প্রশাসনিক সুবিধের কারণে। প্রতিটি জেলাই একে অন্যের থেকে যেমন ভূমিরূপে আলাদা, তেমনি ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকেও স্বতন্ত্র। প্রতিটি জেলার এই নিজস্বতাই আজ আমাদের বাংলাকে […]আরও পড়ুন
  • কমলা ভট্টাচার্য

    কমলা ভট্টাচার্য

    কমলা ভট্টাচার্য (Kamala Bhattacharya) ভারত তথা বিশ্বের প্রথম এবং ভারতের একমাত্র মহিলা ভাষা শহীদ যিনি মাত্র ষোলো বছর বয়সে ১৯৬১ সালের বরাক উপত্যকার ভাষা আন্দোলনে পুলিশের গুলিতে শহীদ হয়েছিলেন। ১৯৪৫ সালে অবিভক্ত বাংলার তৎকালীন শ্রীহট্ট তথা বর্তমান সিলেট জেলায় কমলা ভট্টাচার্যের জন্ম হয়। তাঁর বাবা রামরমণ ভট্টাচার্য এবং মা সুপ্রবাসিনী দেবী। সাত ভাই-বোনের মধ্যে কমলা […]আরও পড়ুন
  • সতীপীঠ কঙ্কালীতলা

    সতীপীঠ কঙ্কালীতলা

    কঙ্কালীতলা মন্দিরটি পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার বোলপুরে কোপাই নদীর তীরে অবস্থিত। বলা হয় এটি একান্ন সতীপীঠের শেষ পীঠ। এই পীঠ সতীপীঠ না উপপীঠ এই নিয়ে অনেক মতান্তর রয়েছে। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে এখানে সতীর কঙ্কাল পড়েছিল। মতান্তরে বলা হয় এখানে সতীর কোমরের অংশ পড়েছিল। এখানে অধিষ্ঠিত দেবী দেবগর্ভা এবং ভৈরব হলেন রুরু। অন্যমতে দেবীর নাম রত্নাগর্ভি। পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে মাতা […]আরও পড়ুন
  • দিলীপকুমার রায়

    দিলীপকুমার রায়

    দিলীপকুমার রায় (Dilip Kumar Roy) একজন বিখ্যাত বাঙালি যিনি সঙ্গীতজ্ঞ, সঙ্গীত সমালোচক, গীতরচয়িতা, সুরকার ও গায়ক হওয়ার পাশাপাশি সাহিত্যের নানান শাখায় নিজের উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে গেছেন৷ বিখ্যাত দেশাত্মবোধক সঙ্গীত রচয়িতা দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের পুত্র ছিলেন দিলীপকুমার রায়। ১৮৯৭ সালের ২২ জানুয়ারি নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে দিলীপকুমার রায়ের জন্ম হয়৷ তাঁর বাবা ছিলেন খ্যাতনামা নাট্যকার ও গীতিকার দ্বিজেন্দ্রলাল […]আরও পড়ুন
  • সুনীতা উইলিয়ামস

    সুনীতা উইলিয়ামস

    সুনীতা লিন উইলিয়ামস (Sunita Lyn Williams) একজন সুবিখ্যাত ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান মহাকাশচারীএবং নৌ-আধিকারিক (Navy Officer) যিনি বিশ্বের প্রথম মহিলা মহাকাশচারী হিসেবে সর্বাধিক সময় (১৯৪ দিন) মহাকাশে অবস্থান করবার রেকর্ড করেছেন।  নাসার (NASA) বিভিন্ন  মহাকাশ অভিযানের সঙ্গে যুক্ত থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছেন তিনি। সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম হয় ১৯৬৫ সালের ১৯ সেপ্টেম্বরে আমেরিকার ওহিও রাজ্যের ইউক্লিড […]আরও পড়ুন
  • অবলা বসু

    অবলা বসু

    উনিশ শতকের বাংলায় নারীশিক্ষা বিস্তারের প্রচেষ্টার পাশাপাশি বিধবাদের সামগ্রিক সহায়তাদানে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলেন যে বিখ্যাত বাঙালি সমাজসেবী, তিনি অবলা বসু ( Abala Bose)। অবলা বসু সারা দেশে মেয়েদের স্বাবলম্বী ও তাদের শিক্ষার প্রসার ঘটাতে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন একাধিক বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয়, নারীশিক্ষা সমিতি, নারী শিল্প সমবায় আবাসস্থল। একজন সুযোগ্য শিক্ষিকা হওয়ার সুবাদে শিক্ষাক্ষেত্রে পাশ্চাত্যের কিছু নতুন […]আরও পড়ুন
  • রামচন্দ্র দত্ত

    রামচন্দ্র দত্ত

    রামচন্দ্র দত্ত (Ramchandra Dutta) শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের একজন শিষ্য এবং শ্রীশ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের জীবন- বৃত্তান্ত গ্রন্থটির রচয়িতা হিসেবে ইতিহাসে বিখ্যাত হয়ে আছেন। তিনি স্বামী বিবেকানন্দের মা ভুবনেশ্বরী দেবীর ভ্রাতুষ্পুত্র ছিলেন। বিবেকানন্দের থেকে তিনি বারো বছরের বড় ছিলেন। বিবেকানন্দের ষোল বছর বয়সে এই রামচন্দ্রই বিবেকানন্দকে দক্ষিণেশ্বর নিয়ে গিয়েছিলেন শ্রী রামকৃষ্ণের সাথে সাক্ষাতের জন্য। ১৮৫১ সালে ৩০ […]আরও পড়ুন
To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।