বিবিধ

বিল গেটসের সম্পত্তি

বিল গেটস! নামটা বলতেই যেটা প্রথম মাথায় আসে পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। তারপর মনে পড়ে মাইক্রোসফট এর প্রতিষ্ঠাতা। ফোর্বস ম্যাগাজিনের করা সদ্য সমীক্ষা থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বিল গেটস আবারও বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির শিরোপা টি অক্ষুন্ন রাখলেন যা তিনি রাখছেন গত ২৩ বছর ধরে। ওনার বর্তমান মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৮৬ বিলিয়ন আমেরিকান ডলার। মানে ভারতীয় মুদ্রায় টাকার পরিমাণ টা খুব যে একটা বেশি তা কিন্তু নয়। মাত্র ৫৬২২৪৯৯৪০০০০০টাকা। হিসেব করে উচ্চারণ করার দায়িত্বটা কিন্তু আপনার।
২০০৭ সালে বিল গেটস এর সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ৭.২ বিলিয়ন আমেরিকান ডলার। সেই সময় করা একটি সমীক্ষা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী এই পরিমাণ টাকায় সমতুল্য কিছু চোখ কপালে তোলা তথ্য আপনাদের শোনাই আজ:-

১. বিল গেটসের সম্পত্তির যা পরিমাণ ছিল ২০০৭ সালে, তাতে উনি একাই চাইলে মঙ্গল অভিযানের যাবতীয় খরচ বহন করতে পারেন। তাও আবার একবার নয়, দু'বার।

২. বিল গেটস যদি চান তাহলে ওনার যা সম্পত্তির পরিমাণ সেই টাকায় উনি গোটা আমেরিকার সমস্ত ১৮ বছর বয়সী ছেলে মেয়েদের ৪ বছরের গ্রাজুয়েশন কোর্সের যাবতীয় খরচ বহন করতে পারেন।

৩. ১০০ ডলারের একটি নোট যদি ওনার পকেট থেকে পড়ে যায়, তাহলে সেটা কুড়িয়ে পকেটে ভরতে যাওয়া, দেখতে গেলে ওনার আর্থিক ক্ষতিই করবে। কেন? ৭.২বিলিয়ন আমেরিকান ডলারের ওপর যদি বছরে ৬% করে সুদ হয়, তাহলে প্রতি সেকেন্ডে ওনার আয় ১১৪ ডলার। সুতরাং ৮৬ বিলিয়ন ডলারের মালিকের ১০০ ডলার কুড়ানোর জন্য কোমর ঝুঁকিয়ে মাটি থেকে নোট তুলে পকেটে ভরতে ১সেকেন্ডের বেশিই লাগবে। সেক্ষেত্রে পড়ে যাওয়া নোট তোলা বলতে গেলে একরকম ব্যাড ইনভেস্টমেন্ট।

৪. ওনার সমগ্র সম্পত্তির ওপর পাওয়া সুদ দিয়েই কেবল আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশের জাতীয় ঋণ শোধ করে দিতে পারবেন।

৫. যদি বিল গেটস কে দেশ ধরা হয়, তাহলে পৃথিবীর ৩৭তম ধনী দেশ উনি।

৬. ভারতের বর্তমান যা জাতীয় ঋণ তা শোধ করতে ওনার ১১ বছর লাগবে।

৭. যদি বিল গেটসের পুরো সম্পত্তিকে ১ ডলারের নোটে খুচরো করা হয়, তাহলে যে দৈর্ঘ্য দাঁড়াবে তাতে চাঁদে ১৪ বার আসা যাওয়া করা যাবে। তবে রাস্তার যা দৈর্ঘ্য দাঁড়াবে সেই রাস্তা বানাতেই ১৪০০বছর লেগে যাবে। আর যে পরিমাণ ১ডলারের নোট লাগবে ওই দৈর্ঘ্যের রাস্তা বানাতে তাতে মোট ৭১৩ খানা বোয়িং ৭৪৩ বিমান লাগবে ওই খুচরো নোট নিয়ে যেতে।

৮.যদি ধরে নিই উনি আরো বছর দশেক বাঁচবেন, তাহলে মৃত্যুর আগে ওনাকে রোজ নিয়ম করে ৬১ কোটি ৬১লক্ষ ৬৪ হাজার ৩১৭ টাকা খরচ করতে হবে দেউলিয়া হবার জন্য।

৯. যদি উইন্ডোজ ব্যবহারকারী পৃথিবীর সমস্ত ব্যক্তিরা প্রতিবার মেশিন হ্যাং করে যাওয়ার জন্য ১ডলার করে ক্ষতিপুরণ চান বিল গেটসের থেকে, তাহলে অবশ্যই তিনি তিন বছরের মধ্যে সেই ক্ষতিপূরণ শোধ করে দিতে পারবেন।

প্রসঙ্গত বলে রাখি গেটস সাহেবের দখলে রয়েছে বিশ্বের সব থেকে দামি বইটি। 'কোডেক্স লেইসেস্টার', লিওনার্দো দা ভিঞ্চির নিজের হাতে লেখা এবং আঁকা সম্বলিত নোটবুক। বইটি উনি কেনেন ১৯৯৪ সালে ১৯৪ কোটি টাকা দিয়ে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top

 পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে সকলকে পড়ার সুযোগ করে দিন।  

error: Content is protected !!