ধর্ম

বড়দিনে ক্রিসমাস ট্রি সাজানোর রীতি এল কীভাবে

ক্রিসমাস বা বড়দিন উদযাপনের এক অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ক্রিসমাস ট্রি। আমরা প্রত্যেকেই দেখেছি দোকানে সাজানো ক্রিসমাস ট্রি যার একদম ওপরে একটি তারা লাগানো আর গাছের ডাল থেকে ঝুলন্ত বিভিন্ন ঘন্টা।কিন্তু কখনো কি মনে হয়েছে আমাদের ক্রিসমাস পালনের সাথে এই গাছের সম্পর্ক কি?

আসলে এই রীতি শুরু থেকে খ্রীস্টানদের ছিলনা। ঘর সাজানোর এই রীতি প্রচলিত ছিল প্যাগানদের মধ্যে। ক্রিসমাস ট্রি হিসেবে চিরসবুজ গাছের ব্যবহার শুরু হয়েছিল যিশুখ্রিষ্টের জন্মের আগে থেকেই। প্রাচীনকালে শীতপ্রধান দেশের মানুষ পাইন বা দেবদারুগাছকে সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে মনে করত। তখনকার মানুষের ধারণা ছিল, বাড়ির আঙিনায় চিরসবুজ এই গাছগুলি থাকলে কোনো অশুভ শক্তি বাড়ির ত্রিসীমানায় ঘেঁষতে পারবেনা। তবে এখন আমরা যে ক্রিসমাস ট্রি দেখি সেটার ব্যবহার শুরু হয়েছিল প্রথম ষোড়শ শতাব্দীর জার্মানিতে। সে সময় জার্মান খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীরা বড়দিনের উৎসবে ক্রিসমাস ট্রি’তে আলোর ব্যবহার ছাড়াও আরও নানান উপকরণ  গাছেএর ওপরে একটি তারা থাকে যেটি স্বর্গদূত অর্থাৎ যিশুখ্রিস্টের প্রতীক।বড়দিনে ক্রিসমাস ট্রি সাজানোর এই রীতি শুরু কীভাবে হয় তার লিখিত কোনো তথ্যপ্রমাণ নেই। এ নিয়ে প্রচলিত আছে বিভিন্ন গল্প। এমন একটি গল্প অনুযায়ী রোমের এক গরিব কাঠুরের ঘরে একদিন এক শিশু শীতে কাঁপতে কাঁপতে হাজির হয়। কাঠুরে দম্পতি ছিল যিশুভক্ত। তারা শিশুটিকে আদর করে খাওয়ালেন, নরম বিছানায় শুতে দিলেন। সকালে ওই শিশু দেবদূতের রূপ ধরে বলল, ‘আমিই যিশু’। তাকে আদর-আপ্যায়ন করার জন্য কাঠুরে দম্পতিকে তিনি দেবদারু গাছের একটি ডাল দিলেন এবং তা মাটিতে পুঁতে রাখতে বললেন। এরপর ক্রিসমাসের দিন দেখা গেল ডালটি সোনালি আপেলে ভরে গেছে। তখন তারা এ গাছের নাম দেন ক্রিসমাস ট্রি।

আরেকটি কিংবদন্তি অনুসারে ইংল্যান্ডের ডেভন রাজ্যের ক্রেডিটন গ্রামের এক সন্ত, সেন্ট বনিফেস  একবার ইংল্যান্ড থেকে জার্মানি যাত্রা করলেন জার্মান প্যাগান উপজাতিদের খ্রিষ্টধর্মে দীক্ষিত করার উদ্দেশ্যে। সেখানে তিনি একদল প্যাগানদের মুখোমুখি হন যারা কিনা একটি বালককে একটি ওক গাছের উদ্দেশ্যে বলি দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল। এই ঘটনা দেখে ক্রুদ্ধ বনিফেস ওক গাছটিকে কেটে ফেলেন। কিন্তু অবাক হয়ে যান যখন দেখেন সেই কেটে ফেলা ওক গাছের মূল থেকে একটি তরুণ দেবদারু গাছের জন্ম হয়েছে । সেন্ট বনিফেস এই দেবদারু তরুকে খ্রিষ্টধর্মের সপক্ষেই ধরে নেন এবং তার অনুগামীদের এই গাছটিকে মোমবাতি দিয়ে সাজিয়ে দিতে বলেন যাতে সেই রাতেই তিনি প্যাগানদের খ্রিষ্টধর্মে দীক্ষিত করতে পারেন।

মোটামুটিভাবে বলা যেতে পারে এভাবেই ক্রিসমাস উপলক্ষে ক্রিসমাস ট্রি সাজানোর প্রথা শুরু হয়েছিল।

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।

ষট পঞ্চমী ব্রত



এখানে ক্লিক করে দেখুন ইউটিউব ভিডিও

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়



তাঁর সম্বন্ধে জানতে এখানে ক্লিক করুন