ভূগোল

অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়া নামটা শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে বাইশ গজের পিচ অর্থাৎ ক্রিকেট। পেশাদারি এবং শৌখিন উভয় স্থরে এই খেলা যেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাণ। এছাড়া সিডনি ওপেরা হাউসের অপরূপ সৌন্দর্যের কথা নতুন করে বলার নেই; সিডনি বন্দরে অবস্থিত পাল তোলা নৌকার মতন দেখতে এই ওপেরা হাউস বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুও বটে।

অস্ট্রেলিয়ার উত্তরে তিমুর সাগর, আরাফুরা সাগর, ও টরেস প্রণালী, দক্ষিণে ভারত মহাসাগর ও ব্যাস প্রণালী , পূর্ব দিকে তাসমান সাগর ও প্রবাল সাগর এবং পশ্চিমে ভারত মহাসাগর ঘিরে রয়েছে সমগ্র দেশটিকে।

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী হল ক্যানবেরা । অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম দ্বীপ এবং বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম শহর এইটি। এখানে প্রচুর পরিমানে ক্যাঙ্গারু দেখা যায়। বৃহত্তম শহর হল সিডনি।অস্ট্রেলিয়া ম্যাপ

বিশ্বের ক্ষুদ্রতম মহাদেশ ওশিয়ানিয়ার অন্তর্ভুক্ত অস্ট্রেলিয়া দেশটি আয়তনের বিচারে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেছে ।
এই দেশে বসবাসকারী ৮০% মানুষ ইউরোপীয় বংশোদ্ভূত।

অস্ট্রেলিয়ার মুদ্রা হল অস্ট্রেলিয়ান ডলার।

অস্ট্রেলিয়া যেহেতু বিদেশী উপনিবেশ ছিল তাই এখানে অস্ট্রেলীয় ইংরাজিই ভাষার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

অস্ট্রেলিয়ার বেশীরভাগ জনগন খ্রীষ্ট ধর্ম পালন করে থাকেন।

অস্ট্রেলিয়ার উল্লেখযোগ্য ভ্রমণ স্থানের তালিকা অপূর্ণই থেকে যাবে যদি তালিকার শুরুতেই সিডনি ওপেরা হাউসের নাম না থাকে। এছাড়াও বিখ্যাত ভ্রমণ স্থানের মধ্যে পড়ে মেলবোর্নের ক্রিকেট মাঠ, ম্যারিয়ান পার্কে অবস্থিত প্রবাল প্রাচীর গ্রেট বেরিয়ার রিফ, সিডনি হার্বার ব্রিজ, ব্লু মাউন্টেনস্ ন্যাশনাল পার্ক, ইত্যাদি।

১ Comment

1 Comment

  1. Pingback: ক্রিকেট বিশ্বকাপ ১৯৮৩ | সববাংলায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top

 পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে সকলকে পড়ার সুযোগ করে দিন।  

error: Content is protected !!