ইতিহাস

ফিফা বিশ্বকাপ ১৯৩০।। প্রথম বিশ্বকাপ

ফিফা বিশ্বকাপ ১৯৩০ ছিল ফিফা বিশ্বকাপের প্রথম আসর। এই বিশ্বকাপের আসর ১৩ থেকে ৩০শে জুলাই উরুগুয়েতে অনুষ্ঠিত হয়। সর্বমোট ১৩টি দেশ এই খেলায় অংশগ্রহণ করেছিল। ফাইনালে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে বিজয়ী হয় উরুগুয়ে।

১৯১৪ সালে, ফিফা অলিম্পিক প্রতিযোগিতায় ফুটবলকে "অপেশাদার বিশ্ব ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ" হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। ১৯৩০ সালের আগে ফুটবলের সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতা হিসাবে একমাত্র অলিম্পিকই ছিল। ১৯৩২ সালের লস এঞ্জেলসে অনুষ্ঠিত গ্রীষ্ম অলিম্পিকে ফুটবলকে না রাখার পরিকল্পনা করা হয়। ফিফা এবং আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির মধ্যে অপেশাদার খেলার মর্যাদা নিয়ে মতবিরোধও দেখা দেয়। ফলে অলিম্পিক থেকে ফুটবল বাদ পড়ে যায় হয়। ১৯২৮ সালে তৎকালীন ফিফা প্রেসিডেন্ট জুলে রিমে ফুটবলকে অলিম্পিক থেকে আলাদা করে ফুটবলের নিজস্ব প্রতিযোগিতা হিসাবে ঘোষণা  করেন।  তখন অবধি উরুগুয়েই ছিল ফুটবল খেলার সবচেয়ে সফল দল। ১৯২৪ ও ১৯২৮ সালের দুটি অলিম্পিকেই তারা সোনা জিতেছিল। তাই ১৯৩০ সালে উরুগুয়েতে খেলার আয়োজন করা হয়। আর এভাবেই চালু হয় প্রথম বিশ্বকাপ।

তবে ফিফার এই সিদ্ধান্তে ইউরোপের দেশগুলোর বেশ অসুবিধা হয়। বেশিরভাগ দেশই জাহাজে আটলান্টিক সাগর পেরিয়ে লাতিন আমেরিকায় গিয়ে বিশ্বকাপে যোগ দিতে রাজি ছিলনা। ইউরোপ থেকে রাজি হয়েছিল শুধুমাত্র বেলজিয়াম, ফ্রান্স, রোমানিয়া, যুগোস্লাভিয়া এই চারটে দেশ। উত্তর আমেরিকা যোগ দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র আর মেক্সিকো। তবে কেবলমাত্র দক্ষিণ আমেরিকা থেকেই যোগ দিয়েছিল সাতটি দেশ। আর কোনও বিশ্বকাপে দক্ষিণ আমেরিকা থেকে এতজন  যোগ দেয়নি।

১৩টি দলকে চারটি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছিল। প্রথম গ্রুপে ছিল ফ্রান্স, চিলি, আর্জেন্টিনা ও মেক্সিকো। দ্বিতীয় গ্রুপে ছিল বলিভিয়া, ব্রাজিল ও যুগোশ্লাভিয়া। তৃতীয় গ্রুপে ছিল প্রথম বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ উরুগুয়ে, পেরু ও রোমানিয়া। চতুর্থ গ্রুপে ছিল যুক্তরাষ্ট্র, প্যারাগুয়ে এবং বেলজিয়াম। প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা ও যুক্তরাষ্ট্র।  আর্জেন্টিনা ৬-১ ব্যবধানে বিজয়ী হয়। দ্বিতীয় সেমি ফাইনালে মুখোমুখি হয় উরুগুয়ে ও যুগোশ্লাভিয়া। উরুগুয়ে ৬-১ ব্যবধানে বিজয়ী হয়। দুটো সেমিফাইনালের ফলাফলই এক বেরোয়।

১৯৩০ সালের ৩০শে জুলাই উরুগুয়ের এস্তাদিও সেন্তেনারিও স্টেডিয়ামে এই বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা হয়। কিন্তু খেলা শুরুর আগেই কোন দলের বল দিয়ে খেলা হবে সেই নিয়ে ঝামেলা বেধে যায়। শেষ পর্যন্ত ফিফা সিদ্ধান্ত নেয় প্রথম অর্ধে আর্জেন্টিনার বল এবং দ্বিতীয় অর্ধে উরুগুয়ের বল দিয়ে খেলা হবে। উরুগুয়ে ৪-২ গোলে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ বিজয়ী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top
error: Content is protected !!