আজকের দিনে

১৭ অক্টোবর ।। আন্তর্জাতিক দারিদ্র দূরীকরণ দিবস

প্রতি বছর প্রতি মাসের নির্দিষ্ট কিছু দিনে বিভিন্ন দেশে কিছু দিবস পালিত হয়। ওই নির্দিষ্ট দিনে অতীতের কোনো গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাকে স্মরণ করা বা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরি করতেই এই সমস্ত দিবস পালিত হয়। পালনীয় সেই সমস্ত দিবস গুলির মধ্যে একটি হল আন্তর্জাতিক দারিদ্র দূরীকরণ দিবস (International Day for the Eradication of Poverty)।

প্রতি বছর ১৭ অক্টোবর সারা বিশ্বজুড়ে এই দিনটি পালিত হয় দারিদ্র, ক্ষুধা, হিংসা এবং ভয়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নেওয়ার উদ্দেশ্যে।

১৯৮৭ সালে ফ্রান্সের প্যারিস শহরে প্রথম আন্তর্জাতিক দারিদ্র দূরীকরণ দিবস উদযাপন করা হয়েছিল। এই দিনে প্যারিসে প্রায় এক লক্ষ মানুষ একত্রিত হয়েছিল দারিদ্র, ক্ষুধা, হিংসা এবং ভয়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নেওয়ার জন্য। সেই দিনটি উপলক্ষে একটি স্মৃতিফলক উন্মোচিত হয়েছিল ইন্টারন্যাশনাল মুভমেন্ট এটিডি ফোর্থ ওয়ার্ল্ড (International Movement ATD Fourth World) এর প্রতিষ্ঠাতা জোসেফ রেসিনকীর দ্বারা। এর কিছু বছর পরে ১৯৯২ সালে রাষ্ট্রপুঞ্জ এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য দূরীকরণ দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

এই দিনটি পালনের পেছনে জোসেফ রেসিনকীর বিশেষ অবদান ছিল। তিনি তাঁর কর্মজীবনের অভিজ্ঞতার মাধ্যমে বুঝেছিলেন দেশের সরকার বেশিরভাগ সময় দরিদ্র মানুষদের অবহেলা করে থাকে। এই কারণে দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকা মানুষেরা হীনমন্যতায় ভোগে এবং এর সুযোগ নিয়ে সমাজের কিছু আর্থিকভাবে স্বচ্ছল শ্রেণীর মানুষ তাঁদের সাথে দুর্ব্যবহার করে। মূলত দারিদ্র, ক্ষুধা, হিংসা এবং ভয়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার নেওয়ার জন্যই তিনি এই দিনটি পালন করার অঙ্গীকার নেন। এই দিনটি পালন করার মাধ্যমে তিনি চেয়েছিলেন দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকা মানুষদের জন্য কিছু কাজ করতে। এইসব মানুষের অবস্থা সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সচেতন করা খুবই প্রয়োজন। এই দিনটি পালন করার আরেকটি মূল উদ্দেশ্য ছিল এই সব বঞ্চিত মানুষদের কথা সরকারের কাছে পৌঁছে দেওয়া।

বিশ্বে দিনে দিনে দারিদ্র্যের পরিমাণ বেড়েই চলেছে। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান। দারিদ্র্যের শিকার হওয়ায় তাঁদের জীবনযাত্রা বিঘ্নিত হয় এবং এর কারণে আরো পারিপার্শ্বিক নানান গুরুতর সমস্যা যেমন অকাল মৃত্যু, বিভিন্ন ধরনের রোগ সংক্রমণ, হিংসা, ভয়, ঘৃণা, অন্যায় অত্যাচার এবং আরো নানান সমস্যা বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। এই  সমস্যাগুলির সাথে মোকাবিলা করার জন্যই আন্তর্জাতিক দারিদ্র দূরীকরণ দিবস পালন করা হয়।

এই দিনটি উপলক্ষে সারা বিশ্বজুড়ে নানা কর্মকাণ্ডের আয়োজন করা হয়। যেমন বিভিন্ন অনুষ্ঠান, বক্তৃতা সভা, সেমিনার, ওয়ার্কশপ, চিত্রপ্রদর্শনী, তথ্যচিত্র প্রদর্শনী, মিছিল, সচেতনতামূলক সভা, আলোচনা সভা, বিতর্ক সভা ইত্যাদি। প্রতিবছর কোন না কোন থিমকে কেন্দ্র করে এই দিনটি পালিত হয়। যেমন ২০১৯  সালে এই দিনটি উদযাপনের থিম ছিল- শিশু অধিকার (child rights)। এই দিনটি উপলক্ষে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন সরকারি সংস্থা, এনজিও (NGO) এবং অন্যান্য সংস্থা মিলে গরিব মানুষদের জন্য নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বিতরণ করে। এই কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষও সমানভাবে যোগদান করে। ২০২০ সালের থিম ছিল- ‘সবার জন্য সামাজিক ও পরিবেশগত বিচার অর্জনের জন্য একসাথে কাজ করা’ (Acting together to achieve social and environmental justice for all)

এই দিনটি উদযাপন সাধারণ মানুষকে সুযোগ করে দেয় সেই সব মানুষকে শ্রদ্ধা এবং সম্মান জানানোর যাঁরা প্রতিনিয়ত দারিদ্র্যের সাথে যুদ্ধ করে যাচ্ছেন। এছাড়াও এই দিনটি পালনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকা মানুষের জন্য কিছু করার অনুপ্রেরণা যোগানো হয়।আশা করা হয় ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য দূরীকরণ দিবস পালনের মাধ্যমে আরো বেশি সংখ্যক মানুষেকে দারিদ্র্য সম্পর্কে সচেতন করা যাবে।

সববাংলায় পড়ে ভালো লাগছে? এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ভিডিও চ্যানেলটিওবাঙালি পাঠকের কাছে আপনার বিজ্ঞাপন পৌঁছে দিতে যোগাযোগ করুন – contact@sobbanglay.com এ।


Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।