আজকের দিনে

২৯ আগস্ট ।। ভারতের ‌জাতীয় ক্রীড়া দিবস

প্রতিবছর প্রতিমাসের নির্দিষ্ট কিছু দিনে কিছু দিবস পালিত হয়। নির্দিষ্ট দিনে অতীতের কোনো গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাকে স্মরণ করা বা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরী করতেই এই সমস্ত দিবস পালিত হয়। ভারতবর্ষও তার ব্যাতিক্রম নয়। ভারতে পালনীয় সেই সমস্ত দিবসগুলোর মধ্যে একটি হল ‌জাতীয় ক্রীড়া দিবস (National Sports Day)।

প্রতিবছর ২৯ আগস্ট ভারতে ‌‌জাতীয় ক্রীড়া দিবস পালন করা হয়। খেলার জগতে জাতীয় দলের প্রতি সম্মান জানানোর উদ্দেশ্যে এবং খেলার প্রতি মানুষের উৎসাহ বৃদ্ধি করার জন্য এই দিনটি পালন করা হয়ে থাকে।

হকির জাদুকর মেজর ধ্যান চাঁদের জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখতে এই দিনটি ভারতে ‌জাতীয় ক্রীড়া দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ধ্যানচাঁদকে ভারতের সর্বকালের সেরা হকি খেলোয়াড় হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। স্বাধীনতা-পূর্ব হকি খেলায় তথা ভারতীয় ক্রীড়া জগতে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। কিংবদন্তি হকি খেলোয়াড় ধ্যানচাঁদ ১৯০৫ সালের ২৯ আগস্ট ভারতের এলাহাবাদে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা সোমেস্বর দত্ত ছিলেন ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর হকি খেলোয়াড়। ১৬ বছর বয়সে ধ্যানচাঁদ ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যোগ দেন এবং পরে সেখান থেকেই শুরু হয় তাঁর হকি খেলা। জাতীয় দলের খেলোয়াড় হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি দেশের হয়ে অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করেন।

ধ্যানচাঁদ ভারতের হয়ে অলিম্পিক গেমসে তিনবার (১৯২৮, ১৯৩৪, ১৯৩৬ সালে) স্বর্ণপদক অর্জন করেন। ১৯২৬-১৯৪৮ সাল পর্যন্ত হকি খেলোয়াড় হিসেবে ৪০০-র ওপর গোল করে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভারতের নাম উজ্জ্বল করে তুলেছেন ধ্যান চাঁদ। তিনি বিশ্ব হকিতেও অবদান রেখেছেন। সারাবিশ্বের হকি খেলোয়াড়দের মধ্যে তাঁকে অন্যতম সেরা হকি খেলোয়াড় হিসেবে গণ্য করা হয়। এমনকি অ্যাডলফ হিটলার তাঁকে জার্মানির হয়ে খেলার জন্য বড় অংকের টাকার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন কারণ দেশের হয়ে খেলাই ছিল তাঁর কাছে সবথেকে বেশি গর্বের। খেলার জগতে আজীবন কৃতিত্বের (Lifetime Achievement) পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয় ‘মেজর ধ্যান চাঁদ পুরস্কার’।

প্রত্যেক মানুষের জীবনে খেলাধুলার গুরুত্ব অপরিসীম। ছাত্রছাত্রীরা শারীরিক ও মানসিকভাবে সক্ষম থাকলে শিক্ষাক্ষেত্রেও সফল হতে পারবে। এছাড়াও খেলাধুলার মাধ্যমে শিশুদের মধ্যে বন্ধুত্বের পাশাপাশি গড়ে ওঠে টিম স্পিরিট ও নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা। তাই নিয়মিত খেলাধুলার অনুশীলন অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

ভারতে এই দিনটি বিশেষ মর্যাদার সঙ্গে পালন করা হয়ে থাকে। এই দিনেই রাষ্ট্রপতি ‘অর্জুন পুরস্কার’ ও ‘খেল রত্ন’ পুরস্কার তুলে দেন ভারতীয় ক্রীড়াজগতের কৃতীদের হাতে। খেলার জগতে আজীবন কৃতিত্বের জন্য দেওয়া হয় ‘মেজর ধ্যানচাঁদ পুরস্কার’। জাতীয় ক্রীড়া দিবস উপলক্ষে এই দিন কিংবদন্তি হকি খেলোয়াড় ধ্যান চাঁদের মূর্তিতে মাল্যদান করা হয়। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা নানান খেলাধুলার ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। এছাড়াও এই বিশেষ দিনে স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মচারী সহ এলাকার ক্রীড়া প্রেমীদের নিয়ে একটি শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়। সেই শোভাযাত্রায় হকি, ব্যাডমিন্টন, ক্রিকেট, ফুটবল, টেবিল টেনিস সহ একাধিক খেলায় অংশগ্রহণ করে স্কুল ও কলেজের ছাত্রছাত্রীরা।

সববাংলায় পড়ে ভালো লাগছে? এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ভিডিও চ্যানেলটিওবাঙালি পাঠকের কাছে আপনার বিজ্ঞাপন পৌঁছে দিতে যোগাযোগ করুন – contact@sobbanglay.com এ।


Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।