ভূগোল

ফ্রান্স

শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতির পীঠস্থান বলতে যে দেশটির নাম মনে আসে সেটি ফ্রান্স (France )। ফরাসি রান্না, সুগন্ধি, ফ্যাশন সারা পৃথিবীতে সুপরিচিত। ফ্রান্স বললেই যেমন চোখের সামনে ভেসে ওঠে আইফেল টাওয়ারের ছবি তেমনই ফুটবলপ্রেমীদের মাথায় আসে জিনেদিনা জিদানের নাম যাঁর হাত ধরে ১৯৯৮ সালে ফ্রান্স ফুটবল বিশ্বকাপ জয় করে। কিন্তু এর বাইরেও আছে অনেক কিছু, তারই কিছু খুঁটিনাটি এখানে জেনে নেবো।

ইউরোপ মহাদেশের পশ্চিম প্রান্তে অবস্থিত অন্যতম একটি দেশ হল  ফ্রান্স পশ্চিমে উত্তর আটলান্টিক মহাসাগর, উত্তর-পশ্চিমে ইংরেজ চ্যানেল, উত্তরে উত্তর সাগর, উত্তর-পূর্বে বেলজিয়াম ও লুক্সেনবার্গ, পূর্বে জার্মানি, সুইজারল্যান্ড ও ইতালি, এবং দক্ষিণে ভূমধ্যসাগর (Mediterranean Sea)  মোনাকো, স্পেন ও অ্যান্ডোরা  ঘিরে রয়েছে সমগ্র দেশটিকে। 

france-borders

ফ্রান্সের রাজধানী হল প্যারিস। ফ্রান্সের সবচেয়ে বৃহত্তম এবং গুরুত্বপূর্ণ শহর এটা। আয়তনের বিচারে  ফ্রান্স ইউরোপের তৃতীয় বৃহত্তম দেশ এবং পৃথিবীতে ৪২তম দেশ। আর জনসংখ্যার বিচারে ইউরোপের চতুর্থ বৃহত্তম দেশ।

এ দেশের মুদ্রা ইউরো। ১ ইউরো সমান আমেরিকান মুদ্রায় প্রায় ১.১৫ ডলার আর ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৮০ টাকা দেশের জাতীয় ভাষা হল ফরাসি। দেশের প্রায় সবাই খ্রিষ্টান, বিশেষ করে রোমান ক্যাথলিক। দেশের শাসক রাষ্ট্রপতি।

এই দেশের উল্লেখযোগ্য  ভ্রমণ স্থানের তালিকা অপূর্ণই থেকে যাবে যদি তালিকার শুরুতেই আইফেল টাওয়ারের নাম না থাকে। এছাড়াও লুভের মিউজিয়ামের পাশাপাশি প্রচুর মিউজিয়াম রয়েছে।  ঘোরার দিক থেকে ফ্রান্স বিশ্বের অন্যতম স্থান অধিকার করে আছে। প্রতি বছর এখানে প্রায় আট কোটি ভ্রমণকারীর আগমন হয়।

৭ Comments

৭ Comments

  1. Pingback: জার্মানি | সববাংলায়

  2. Pingback: মঞ্চ নাটকের গোড়ার ইতিহাস | সববাংলায়

  3. Pingback: বাংলা ভাষায় মুদ্রিত প্রথম গ্রন্থ | সববাংলায়

  4. Pingback: বেলজিয়াম | সববাংলায়

  5. Pingback: সুইজারল্যান্ড | সববাংলায়

  6. Pingback: স্পেন | সববাংলায়

  7. Pingback: ফিফা বিশ্বকাপ ১৯৫৮ | সববাংলায়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।