ধর্ম

ধনতেরাস

পাঁচ দিন ব্যাপী দীপাবলি উৎসবের প্রথম দিন হল ধনতেরাস। ধন মানে সম্পদ আর তেরাস হল ত্রয়োদশী অর্থাৎ কার্তিক মাসের কৃষ্ণ পক্ষের তেরোতম দিন।

ধন তেরাসের ইতিহাস ঘাঁটলে আমরা দেখব প্রাচীনকালে রাজা ‘হিম’ এর পুত্র এই ভাগ্য নিয়ে পৃথিবীতে আসেন যে বিয়ের চতুর্থ দিন রাতে সাপের কামড়ে ওনার মৃত্যু হবে। তার সদ্য বিবাহিতা স্ত্রী স্বামীকে বাঁচাতে নিজের যাবতীয় সোনা রূপোর গয়না স্তূপকারে জড়ো করে রাখেন স্বামীর শোওয়ার ঘরের দরজায় ও সমস্ত ঘর প্রদীপের আলোয় সাজিয়ে দেন সাপের পথ আটকাতে। এরপর তিনি সারারাত গল্প বলে, গান গেয়ে স্বামীকে জাগিয়ে রাখেন। যখন যম সাপের বেশে সেই রাজপুত্রের ঘরে প্রবেশ করতে যান তার চোখ ধাঁধিয়ে যায় অলংকার ও প্রদীপের উজ্জ্বলতায়। প্রবেশে বাধা পেয়ে যম ওই সোনার স্তূপের ওপর উঠে অন্যপথে প্রবেশ করতে যান কিন্তু রাজরানীর গল্পে ক্রমশ আকৃষ্ট হয়ে সারারাত সেখানেই কাটিয়ে পরদিন ভোরে নিঃশব্দে ফিরে যান। যেহেতু সোনার অলংকার নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রাজকুমার কে বাঁচায়, তাই এইদিন ধন অর্থাৎ সম্পদের আরাধনা করা হয়। এই কারনে এইদিন সোনা কেনার বিশেষ চল দেশ জুড়ে দেখা যায়।

এছাড়াও কেউ কেউ বলেন, একসময় দুর্বাশা মুনির অভিশাপে স্বর্গ থেকে বিতাড়িত হন লক্ষ্মী। রাক্ষসদের সঙ্গে লড়াই করে ধনতেরাসেই দেবতারা ফিরে পান দেবী লক্ষ্মীকে। হারিয়ে যাওয়া লক্ষ্মীকে ফেরানোর উৎসবই হচ্ছে ধনতেরাস। তবে লক্ষ্মীর  ধন সম্পদের সঙ্গে এই যোগ খুব যে বেশি দিনের তা নয়। তাঁর চঞ্চলা স্বভাবও তার চরিত্রে নতুন সংযোজন, কেননা পুরাণ মতে তিনি নারায়ণের স্ত্রী, সমুদ্র মন্থন থেকে তাঁর জন্ম- কোথাও তাঁর চঞ্চলতার কথাও বলা নেই। বরঞ্চ লক্ষ্মী নামের মধ্যে দিয়েই এক স্বভাবকোমলা নারীর রূপ আমরা দেখতে পাই, যে কিনা বেশি শব্দ সহ্য করতে পারেনা, স্বভাবে স্থির,স্নিগ্ধ আভিজাত্য পূর্ণ এক নারী। সেই নারীর মধ্যে বিষয় আশয় সম্পর্কে এমন মোহের কথা পুরাণে কোথাও পাওয়া যায় না, যাতে তাকে কোনক্রমে সোনাদানা কিনে ঘরে রাখার ব্যবস্থা করতে হয়। এখন মজার কথা হল,  লক্ষ্মীর চরিত্রটাই আমরা পরিবর্তন করে দিয়েছি কালে কালে।যেদিন থেকে লক্ষ্মীকে আমরা ধন সম্পত্তির সঙ্গে জুড়ে দিলাম সেইদিন থেকে তার চরিত্রেও নীরবে যোগ হয়ে গেল চঞ্চল প্রবৃত্তিটি। কোজাগরী লক্ষ্মী থেকে একেবারে দীপান্বিতা অমাবস্যা অবধি শুরু হল লক্ষ্মীর আরাধনা। এই প্রসঙ্গে বলে রাখি স্মার্ত রঘুনন্দন তাঁর ‘কৃত্যতত্ত্বে’ দীপান্বিতা অমাবস্যার রাত্তিরে ষষ্ঠী পুজা থেকে লক্ষ্মী পুজা সব পুজারই বিধান দিয়েছেন- কেবল কালীপুজো ছাড়া। তাহলে কালীপূজো কেন হয় এইদিন, সেই গল্প পরে না হয় একদিন বলা যাবে।আজ বরং ধনতেরসই হোক।

সববাংলায় পড়ে ভালো লাগছে? এখানে ক্লিক করে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ভিডিও চ্যানেলটিওবাঙালি পাঠকের কাছে আপনার বিজ্ঞাপন পৌঁছে দিতে যোগাযোগ করুন – contact@sobbanglay.com এ।


তথ্যসূত্র


  1. https://en.wikipedia.org/wiki/Dhanteras
  2. http://www.timesnownews.com/business-economy/article/dhanteras
  3. ভিতর-বাহির- নৃসিংহ প্রসাদ ভাদুড়িঃ ধনত্রাস- পৃঃ২০৬

 
Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।