ধর্ম

মহালয়া

দুর্গাপূজা বাঙালিদের শ্রেষ্ঠ উৎসব। আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষের ষষ্ঠ দিন থেকে শুরু হয়ে দশম দিন পর্যন্ত এই দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষ তিথিটিকে “দেবীপক্ষ” বলা হয়ে থাকে। মহালয়া হচ্ছে পিতৃপক্ষের শেষ দিন এবং দেবী পক্ষের শুরুর আগের দিন।

এই দিন হিন্দুরা তর্পণ করে তাঁদের স্বর্গীয় পূর্বপুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধানিবেদন করে থাকে। এই তর্পণের রীতি বা পিতৃপক্ষে কিভাবে শ্রাদ্ধ করা যায় সেটা অন্য বিষয়, এখন জানা যাক মহালয়া সম্বন্ধে আরও কিছু।

মহালয়া শব্দটির অর্থ- মহান যে আলয়/ আশ্রয়। কিন্তু মহালয়া শব্দটিকে স্ত্রীলিঙ্গ বাচক শব্দ হিসেবে ব্যবহার করা হয় এই মনে করে এই দিনেই পিতৃপক্ষের অবসান হয়, অমাবস্যার অন্ধকার দূর হয়ে আলোকময় দেবীপক্ষের শুভ আরম্ভ হয় বলেই এই দিনটিকে স্ত্রী লিঙ্গ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।এখানে দেবী দুর্গাই হলেন সেই মহান আলয় বা আশ্রয়।

বাঙালি জীবনে দুর্গাপূজার সুর লহরি বেঁধে দেয় এই মহালয়া। আর এই মহালয়ার সুরটি বেঁধে দেন নিয়ম করে অর্ধশতাব্দী ধরে যিনি তিনি বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র তাঁর অননুকরণীয় ভঙ্গিমায় আকাশবাণী প্রচারিত ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে।

সনাতন ধর্মানুযায়ী কোনও শুভ কাজ শুরুর আগে প্রয়াত পূর্বজ পুরুষদের জন্য তর্পন করে, কাজ শুরু করতে হয়। পুরাণ অনুযায়ী মহালয়ার দিনে, দেবী দুর্গা মহিষাসুরকে বধের গুরুদায়িত্ব পান সেই মহিষাসুর যিনি ব্রহ্মার বরে কোনও মানুষ বা দেবতার অবধ্য হয়ে যান এবং এই বরে বলীয়ান মহিষাসুর দেবতাদের স্বর্গ থেকে বিতারিত করে এবং বিশ্বব্রহ্মান্ডের অধীশ্বর হতে চান।পরে ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও শিব ত্রয়ী সন্মিলিত ভাবে ‘মহামায়া’ এর রূপে দেবী দুর্গার সৃষ্টি করলেন এবং সেই দেবী দুর্গা নয় দিন ধরে প্রবল যুদ্ধ করে মহিষাসুরকে পরাজিত ও হত্যা করলএণ অবশেষে।

২ Comments

২ Comments

  1. Pingback: দুর্গাপূজা | সববাংলায়

  2. Pingback: পিতৃপক্ষ | সববাংলায়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top
error: লেখা নয়, লিঙ্কটি কপি করে শেয়ার করুন।